৭ প্রবাসীকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিশ্বনাথ এডুকেশন ট্রাস্টের সভা

প্রকাশিত: ১০:২২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২

৭ প্রবাসীকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিশ্বনাথ এডুকেশন ট্রাস্টের সভা

যুক্তরাজ্যের ৭ বিশিস্ট ব্যবসায়ীকে ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় ঢাকায় গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযোগ করে প্রতিবাদ সভা করেছেন বিশ্বনাথ প্রবাসী এডুকেশন ট্রাস্টের নেতৃবৃন্দ। বিশেষ করে বিশ্বনাথ প্রবাসী এডুকেশন ট্রাস্টের সিনিয়র ট্রাস্টি আব্দুল আহাদ ও আব্দুল হাই এর গ্রেফতারের তীব্র প্রতিবাদ জানান সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সভায় বক্তারা বলেন, গ্রেফতারকৃত সকলেই ব্রিটেনে একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত। একই সাথে দেশে স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা-মসজিদ প্রতিষ্ঠায়ও তাদের অবদান রয়েছে। কমিউনিটির এসব সিনিয়র ব্যক্তিদের আটকের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। অবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে দায়ের কৃত সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানানো হয়।

সংগঠনের সভাপতি মতছির খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিনের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি শাহ আব্দুল আজিজ, প্রতিষ্টাতা সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সহ-সভাপতি শেখ তাহির উল্লাহ, সিনিয়র ট্রাষ্টি হাসান আলী, আব্দুস ছাত্তার, কোষ্যাধ্যক্ষ আজম খাঁন, মখদ্দুস আলী, সহ-সাধারণ সম্পাদক আখলাকুর রহমান, মোহাম্মদ আলী মজনু ,ট্রাষ্টি শাহ সামিম আহমদ, ড.মুজিবুর রহমান, এ কে এম এহিয়া, আব্দুল মখদ্দুস, সামিম আহমদ, আফছর মিয়া ছুটু, আসাদুর রহমান, মনির আলী, মো: মানিক মিয়া, কদর উদ্দিন। সাংবাদিক আব্দুর রহিম রঞ্জু, জাকির হোসেন কয়েস, খালেদ মাসুদ রনি, আব্দুল বাছিত রফি, মিজুনুর রহমান, আব্দুস ছুবান, আব্দুল গফুর, তৈয়বুর রহমান, নুরুল ইসলাম, আলিম উদ্দিন আজির, খালেদ খাঁন, সামিম আহমদ প্রমূখ।

সভায় বক্তারা বলেন হোমল্যান্ড লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানির গ্রাহকদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ৭ ব্রিটিশ-বাংলাদেশী বিনিয়োগকারী গ্রেফতার করা হলেও তবে রহস্যজনক কারণে একই মামলায় আসামি করা হয়নি কোম্পানিটির চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও মহাব্যবস্থাপকসহ অন্য কোনো পদস্থ কর্মকর্তাকে। এতে বুঝা যায় মামলাটি সম্পূর্ণ সাজানো।

উল্লেখ্য হোমল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভায় অংশ নিতে লন্ডন থেকে ঢাকায় গিয়ে গ্রেফতার হন যুক্তরাজ্য প্রবাসী ৭ পরিচালক। গ্রাহকের পলিসির টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কোম্পানিটির ঢাকার প্রধান কার্যালয় থেকে গত ২১ সেপ্টেম্বর তাদের গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃত সাত ব্রিটিশ-বাংলাদেশী ব্যবসায়ী হলেন সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার বাসিন্দা জামাল মিয়া ও তার ভাই কামাল মিয়া, বিশ্বনাথের আবদুল আহাদ ও তার ভাই আবদুল হাই, ছাতকের জামাল উদ্দিন ও শাহজালাল উপশহরের আবদুর রাজ্জাক।

আর্কাইভ

June 2024
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930